তিশা-ফারহানের নাটকের শুটিংয়ে হামলা, মারধর

টাঙ্গাইলের সন্তোষে অবস্থিত মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢাকা থেকে নাটকের শুটিং করতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন শিল্পী ও কুশীলবরা। জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে ১৫-২০ জনের একটি বখাটে দল এ হামলা চালায়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন।  নাটকের এই দলে ছিলেন মুশফিক ফারহান, তানজিন তিশাসহ আরো অনেকে। পুরো একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহে শুটিংয়ের জন্য দলটি সন্তোষের এই বিশ্ববিদ্যালয়কেই বেছে নেয়। মঙ্গলবার বিকেলে নাটকের প্রধান অভিনেতা মুশফিক আর ফারহান বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করলেও তিনি বলেন, এটা বড় কোনো ঘটনা নয়, আউটডোরে গেলে এ রকম কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে। আসলে ঘটনাটা ঘটেছে মূলত শুটিংকে কেন্দ্র করে ভিড় হওয়া নিয়ে। মুশফিক বলেন, টাঙ্গাইলের এই বিশ্ববিদ্যালয়টি খুবই সুন্দর। আমরা কাল শুটিং করছিলাম। অনেক ভিড় ছিল। ভিড় সামাল দিতে গিয়েই আমাদের ইউনিটের ছেলেদের সঙ্গে সেখানে কথাকাটাকাটির মতো ঘটনা ঘটে জেনেছিলাম। পরে যখন আমি ও তিশা লাঞ্চে ছিলাম তখন শুনেছি এমন ঘটনা ঘটেছে। তবে খুব বড় ঘটনা নয়।   হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দারুণ সহযোগিতা পেয়েছেন বলেও মন্তব্য করেন মুশফিক আর ফারহান। বললেন, এখানকার পরিবেশ, শিক্ষার্থী সব কিছু আমার ভালো লেগেছে। আজ শেষ দিনের শুটিং চলছে। এর পরেই ফিরে যাব ঢাকায়। তবে অপর সূত্র জানাচ্ছে, হামলায় নাটকের প্রযোজকসহ চারজন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন প্রযোজক সৌরভ, সহকারী পরিচালক সবুজ ইশতিয়াক, অভিনেতা কণ্ডাল বিশ্বাস ও অংকন। ১৫-২০ জনের বখাটের একটি দল বাইকে এসে ইটপাটকেল ও বেল্ট দিয়ে শুটিং টিমের ওপর হামলা চালায় বলে গণমাধ্যমকে নাটকের আর্ট ডিরেক্টর নাজিরী সাগর বলেছেন।  বিশ্ববিদ্যালয়ের হল, একাডেমিক ভবন, ক্যাফেটেরিয়া, মুক্তমঞ্চসহ বিভিন্ন পয়েন্টে নাটকের শুটিং হয়েছে। মঙ্গলবার শুটিং শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের হল, ভাসানীর মাজার এলাকা, হল, ক্যাফেটেরিয়া, মুক্তমঞ্চসহ বিভিন্ন পয়েন্টে নাটকের শুটিং হয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.